islamic image 786

আবূ হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু আনহু কর্তৃক বর্ণিত,
একদা গরীব মুহাজির (সাহাবিগণ) রাসূলুল্লাহ
সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর নিকট
এসে বললেন, ‘হে আল্লাহর রসূল! ধনীরাই
তো উঁচু উঁচু মর্যাদা ও চিরস্থায়ী সম্পদের
অধিকারী হয়ে গেল। তারা নামায পড়ছে,
যেমন আমরা নামায পড়ছি,
তারা রোযা রাখছে, যেমন আমরা রাখছি।
কিন্তু তাদের উদ্বৃত্ত মাল আছে,
ফলে তারা হজ্জ করছে, উমরাহ করছে, জিহাদ
করছে ও সদকা করছে, (আর
আমরা করতে পারছি না)।’ এ
কথা শুনে তিনি বললেন,
“আমি কি তোমাদেরকে এমন জিনিস
শিখিয়ে দেব না, যার
দ্বারা তোমরা তোমাদের অগ্রবর্তীদের
মর্যাদা লাভ করবে, তোমাদের পরবর্তীদের
থেকে অগ্রবর্তী থাকবে এবং তোমাদের মত
কাজ যে করবে, সে ছাড়া অন্য কেউ তোমাদের
চাইতে শ্রেষ্ঠতর হতে পারবে না?”
তাঁরা বললেন, ‘অবশ্যই হে আল্লাহর রসূল!
(আমাদেরকে তা শিখিয়ে দিন।)’
তিনি বললেন, “প্রত্যেক (ফরয) নামাযের
পরে ৩৩ বার তাসবীহ, তাহমীদ ও তাকবীর
পাঠ করবে।”
আবূ হুরাইরা থেকে বর্ণনাকারী আবূ সালেহ
বলেন, ‘কিভাবে পাঠ করতে হবে,
তা জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বললেন,
‘সুবহানাল্লাহ’, ‘আল্লাহু আকবার’ ও ‘আল-হামদু
লিল্লাহ’ বলবে। যেন প্রত্যেকটি বাক্য ৩৩
বার করে হয়।
রিয়াদুস স্বালেহীনঃ ১১/১৪২৬। [সহীহুল
বুখারী ৮৪৩, মুসলিম ৫৯৫, আবূ দাউদ ১৫০৪,
আহমাদ ৭২০২, দারেমী ১৩৫৩]